ডায়াবেটিসজনিত অন্ধত্বরোধে আই স্ক্রিনিং চালু (Prevent Diabetic blindness)

বিশ্বের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক মানুষ জানেই না যে নীরব ঘাতক ডায়াবেটিস তাদের শরীরে বাসা বেঁধে ফেলেছে। তারা যখন চোখ বা অন্য অঙ্গে জটিলতা বোধ করে, তখন চিকিৎসকের কাছে যায়, আর তখনই বিষয়টি ধরা পড়ে। তবে বিলম্বিত হওয়ায় অনেক সময় চোখের বড় ক্ষতি হয়।

এ ধরনের ক্ষতির হাত থেকে সুরক্ষা দিতে এবং বিভিন্ন রোগের বিষয়ে আগাম ধারণা দিতে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে আর্টিফিশিয়াল আইহেলথস্ক্রিনিং কার্যক্রম। বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সঙ্গে মিলে ডায়াবেটিসজনিত অন্ধত্বরোধে (Prevent Diabetic blindness) কাজ করছে আইহেলথস্ক্রিন বাংলাদেশ লিমিটেড।

গতকাল শনিবার জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং জাদুঘর প্রাঙ্গণে ভ্রাম্যমাণ আইস্ক্রিন ল্যাবে পরীক্ষা কার্যক্রমের সূচনা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ডা. একে আজাদ খান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ডায়াবেটিক সমিতির মহাসচিব মো. সাইফুদ্দীন। অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক হিসেবে আইস্ক্রিনিংয়ের গুরুত্ব এবং প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা করেন আইহেলথস্ক্রিন বাংলাদেশ লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা, প্রধান বিজ্ঞানী ও সিইও ড. মো. আলাউদ্দীন ভূঁঁইয়া।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আয়োজকদের তরফে জানানো হয়, জনবহুল বাংলাদেশে ব্যাপকভিত্তিক চোখের পরীক্ষার যে প্রযুক্তির ব্যবহার তারা করছেন, সেই বায়োটেক আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স ১৫ বছরের গবেষণা রয়েছে। যুগান্তকারী ওই প্রযুক্তি নন-ইনভেসিভ আইস্ক্রিনিং এবং সেফ প্রিভেন্টিভ। যা ইতোমধ্যে এনআইএইচের থেকে ২.৫ মিলিয়ন ডলার রিসার্চ ফান্ডিং পেয়েছে। এটি সর্বস্তরের মানুষের জন্য সহজলভ্য।